সচরাচর জিজ্ঞাসা
গরুর চামড়া, লেজ, শিং, কান বা শরীরের অন্য কোন অংশে কোন প্রকার খুঁত থাকা যাবে না। যেমন- পশুটি খোঁড়া, গায়ে ঘা, অন্ধ, শরীরে টিউমার, ইত্যাদি হবে না। চলনভংগি স্বাভাবকি থাকতে হবে।
  • (ক) চোখঃ চোখে কোন ছানি পড়া, গ্লুকোমা, করোটাইটিস, কনজাংটিভাইটিস ইত্যাদি যেন না থাকে এবং চোখে ভাল দেখে কিনা পরীক্ষা করে নওেয়া।
  • (খ) নাকঃ নাক থেকে অপ্রত্যাশিত ডিসচার্জর (যেমন – অতিরিক্ত ঠান্ডা, রক্ত, শ্লেষ্যা ইত্যাদি না পড়ে ও শ্বাসতন্ত্রে কোন অপ্রত্যাশিত শব্দ না থাকে ইত্যাদি দেখে নেওয়া)
  • (গ) মুখঃ নিয়মিত জাবর কটবে। মুখের উপরে মাজল/মাফল ভেজা/ঘামযুক্ত থাকবে। মুখ ও জিহবায় কোন ঘা আছে কিনা তা দেখে নেওয়া ইত্যাদি।
  • (ঘ) কানঃ কান নিয়মিত নড়াচড়ার মাধ্যমে সজাগ থাকবে এনং কানের ভিতরে কোন ঘা বা ইনফেকশন থাকা যাবে না।
  • (ঙ) চামড়াঃ সারা শরীরে চামড়ায় কোন গুটি, ঘা, ইনফেকশন থাকা যাবে না।
গরুর আনুমানিক দাম = গরুর মাংসের পরিমান * ৭৫০ টাকা [স্থান, কাল ও পাত্র ভেদে পরর্বিতন হতে পারে]
  • ১। বয়সঃ গরু/মহিষ-২ বছর, ছাগল/ভেড়া/দুম্বা-১ বছর (বিঃদ্রঃ ৬ মাসরে একটি দুম্বা যদি ১ বছর বয়সী দুম্বার পালরে মধ্যে ছেড়ে দেওয়া হয় আর তা হৃষ্ট-পুষ্টের কারণে তা ১ বছর বয়সী দুম্বা থেকে আলাদা না করা যায় তবে সেটিকেও কুরবানী করা যাবে কিন্তু ছাগল যতই বড় হোক তার বয়স ১বছর র্পূণ না হলে সেটিকে কুরবানী করা যাবে না। তবে ছাগল, ভেড়া ও দুম্বার বয়স কমপক্ষে ১ বছর হওয়াই শ্রেয়। উট-৫ বছর বয়সী হতে হবে।
  • ২। চোখঃ যে পশুর ২টি চোখই অন্ধ বা ১ টি চোখ র্পূণ অন্ধ বা একটি চোখের তিন ভাগের এক ভাগ/আরও বেশি দৃষ্টিশক্তি নষ্ট হয়ে গেছে সে পশুর কুরবানী দুরস্থ হবে না।
  • ৩। পাঃ এমন খোড়া পশু যে তিন পায়ের উপর ভর দিয়ে চলে এবং চর্তুথ পা মাটিতে পড়ে না কিংবা বা মাটিতে পড়লেও তার উপর ভর দিতে পারে না এমন পশুর কুরবানী দুরস্থ হবে না।
  • ৪। দাতঃ যে পশুর একটি দাতও নাই সব পড়ে গেছে তবে ঐ পশুর কুরবানী দুরস্থ হবে না আর যদি যতগুলি দাত পড়ে গেছে তার চেয়েও অধকি সংখ্যক দাত বাকী থাকে তবে ঐ পশু ক্বুরবানী দুরস্থ হবে।
  • ৫। কানঃ যে পশুর কান জন্ম থেকেই নাই অথবা অতীব ছোট ঐ পশুরও ক্বুরবানী দুরস্থ আছে।
  • ৬। শিং: যে পশুর শিংই উঠে নাই বা শিং উঠেছিল কিন্তু ভাংগিয়া গেছে ঐ পশুও কুরবানী দুরস্থ হবে। কিন্তু শিং যদি একবোরে মূল থেকে ভাংগিয়া যায় তবে ঐ পশুও কুরবানী দুরস্থ হবে না।
  • ৭। ঘাঃ যে জন্তুর গায়ে বা কাধে দাদ বা খুজলি হয়েছে ঐ পশুরও কুরবানী দুরস্থ আছে কিন্তু খুজলির কারণে পশু অত্যাধিক কৃশ (র্দুবল/ক্ষীন) হয়ে যায় র্অথাৎ এত র্দুবল যে নিজে দাড়াতে পারে না তবে তাহার কুরবানী দুরস্থ হবে না।
  • ৮। স্বাস্থ্যহীনতাঃ কোন পশু যদি অত্যাধকি কৃশ (র্দুবল/ক্ষীন) ও শুষ্ক হইয়া যায় যে তাহার হাড়ের মধ্যের মগজ (Bone Marrow)ও শুকিয়ে গিয়ে থাকে তবে তাহার কুরবানী দুরস্থ হবে না। হাড়ের মধ্যের মগজ যদি শুকিয়ে গিয়ে না থাকে তবে তাহার কুরবানী দুরস্থ হবে।
  • ৯। যে পশুকে খাসী বানাইয়া দওেয়া হইয়াছে তাহার কুরবানী দুরস্থ আছ।